ঢাকারবিবার , ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • অন্যান্য
  1. আন্তর্জাতিক
  2. কক্সবাজার
  3. করোনা ভাইরাস
  4. কলাম
  5. কৃষি
  6. খাগড়াছড়ি
  7. খেলাধুলা
  8. চট্টগ্রাম
  9. জাতীয়
  10. ঢাকা
  11. পানছড়ি
  12. প্রেসবিজ্ঞপ্তি
  13. বাগেরহাট
  14. বান্দরবান
  15. বিনোদন
আজকের সর্বশেষ খবর

হৃদয়ের চট্টগ্রামকে যদি ব্যবহার করতে চাই তাহলে সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে- ড. আহমদ কায়কাউস।

Rangamati News24.com
সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২১ ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস বলেছেন, ১৯৬৫-১৯৬৬ সালে তখন কিন্তু আমাদের নির্বাচন হয়নি যে কারণে প্রধানমন্ত্রীর চট্টগ্রামে অনেক স্মৃতি আছে। প্রধানমন্ত্রীর যখন বিয়ে হয়েছিল তখন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন কারাগারে চট্টগ্রামের নেতারা গিয়ে বঙ্গমাতাকে বলেছেন বঙ্গবন্ধুর মেয়ের বিয়ে হবে আমরা এভাবে হইতে দিব না। সম্ভবত রাইফেল ক্লাবে এনে আলাদা অনুষ্ঠান করেছিল। সেজন‍্য প্রধানমন্ত্রীর বিশাল দূর্বলতা চট্টগ্রামের প্রতি রয়ে গেছে। আমি মনে করি সেই স্নেহ বা হৃদয়ের কোণায় যে চট্টগ্রাম আছে সেটাকে যদি আমরা ব‍্যবহার করতে চাই তাহলে আমাদের সকলে একসাথে কাজ করতে হবে।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ সম্মেলন কক্ষে চট্টগ্রাম বিভাগের বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ এসোসিয়েশন ও পৌরসভা মেয়রদের সাথে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

চট্টগ্রাম বিভাগের বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি এ.কে.এম এহছানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল’র সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আবদুল জব্বার চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- কর্ণফুলি উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বানাজা ভূঁইয়া নিশি, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, চন্দনাইশ পৌরসভা মেয়র মাহবুবুল আলম খোকা, আনোয়ারা উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী, ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান এস. এম. আবু তৈয়ব, পাটিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ তাহেরুল ইসলাম চৌধুরী।

এছাড়া বান্দরবানের লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তফা জামাল, রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন ইসলাম, খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশেপ্রু মারমা, পাটিয়া পৌরসভা মেয়র আইয়ুব বাবুল সহ চট্টগ্রাম বিভাগের জনপ্রতিনিধিবৃন্দ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

পার্বত্য অঞ্চলের পক্ষে বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম জাহাঙ্গীর আলম বলেন, উপজেলা প্রশাসন আলাদা আছে যদিও সেখানে উপজেলা পরিষদ সম্পূর্ণ সম্পৃক্ত নয়। আছে জেলা পরিষদ ক্ষমতা দল শক্তিশালী প্রতিষ্ঠান যেখানে হাজার হাজার শত শত কোটি টাকার উন্নয়ন হয়। সেখানেও উপজেলা পরিষদ সম্পৃক্ত নয় এই বাস্তবতায় আপনাদের কাছে অনুরোধ আবেদন জানাবো যদি পার্বত্য অঞ্চলে ২৬টি উপজেলায় বরাদ্দের মাধ্যমে আমাদের কার্যকারিতা যদি অব্যাহত রাখে কারণ আগামী দিনে জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে নৌকা প্রতীকের ভোট চাইতে আমরাই চেয়ারম্যান ভাইস চেয়ারম্যানরা মাঠে থাকবো আর এই বাস্তবতায় যদি আমরা জনগণের কাছে সম্পৃক্ত হতে না পারি এই প্রশ্ন জনগণ আমাদের কাছে তুলে দিবে বলে প্রধানমন্ত্রী মুখ্য সচিবের কাছে তিনি তুলে ধরেন।

চট্টগ্রাম বিভাগের উপজেলা পরিষদ এসোসিয়েশন পক্ষ থেকে ২ দফা দাবি করে বক্তারা বলেন, ১. প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম বিভাগের উপজেলা পরিষদ এসোসিয়েশন এর সকল সদস্যদের সাথে ভিডিও কনফারেন্স’র মাধ্যমে কথা বলা।

২. ১৭ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট থেকে উপজেলা পরিষদের আইন অনুযায়ী ২০০৯ সালে যে আইন হাইকোর্টের রিট সেটি বাস্তবায়ন এবং ২০১৪ সালের অক্টোবর ও ২০১৫ সালের প্রধানমন্ত্রী মুখ্য সচিব, মন্ত্রী পরিষদ সচিবের সাক্ষরিত অফিস স্মারকটি বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ এসোসিয়েশন কোর্টের কাছে দারস্থ হতে হয়েছে। এতে অবাস্তবায়িত দুটি স্মারক প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের কাছে হস্থান্তর করেন এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবদুল জব্বার চৌধুরী।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
error: Content Is Protected !!